ক্ষিদা পেলেই আমি বিদ্যুৎ খাই

0
82
https://bdboyz.com

আপনার আমার যখন ক্ষিদা পায় তখন আমরা সাধারনত ভাত-মাছ মাংস এবং ফলমূল খেয়ে থাকি। অথচ ভারতের আসাম প্রদেশের এক বাসিন্দা মুকুল কুমার খেয়ে থাকেন বিদ্যুৎ। এবং বিদুত থেকেই শরীরের প্রয়োজনীয় শক্তি সঞ্চয় করেন মুকুল। এমনটাই দাবি করেন তিনি।

আজব মানুষ, আজব তার কাজ কর্ম । তার একটা আজব কাজের মদ্ধে উল্লেখ এই বিদ্যুৎ খাওয়া। বিদ্যুৎ নিয়ে হরেক রকমের কেরামতি দেখান মাত্র ১৯ বছর বয়সের এই মুকুল কুমার। এজন্য এলাকার মানুষ তাকে উপাধি দিয়েছেন ‘দ্য হিউম্যান লাইট বাল্ব’ বা মানব বাতি। মুকুল কুমার জানান, তার দেহ মূলত বিদ্যুৎ নিরপেক্ষ। উচ্চ ভোল্টেজ প্রবাহিত করা হলেও কোনো ক্ষতি হয় না মুকুলের দেহের। আর এ বিষয়টির প্রমাণ করে দেখিয়ে দেন মুকুল কুমার। ১১ হাজার ভোল্টের বৈদ্যুতিক তার মুখে নিয়ে অনায়াসে বসে থাকতে পারেন মুকুল কুমার।তবে সবচেয়ে বেশী আশ্চর্যজনক হচ্ছে বিদ্যুৎ থেকে এনার্জি পাওয়ার বিষয়টিই । তিনি বলেন, আমার যখনই ক্ষুধা লাগে এবং ঘরে কোনো খাবার থাকে না তখন আমি খোলা একটি বৈদ্যুতিক তার মুখে নেই। আধা ঘণ্টার মধ্যেই আমার ক্ষুধা মিটে যায়। অন্যান্য খাবারের মতোই বিদ্যুৎ খাই আমি। শক্তি বাড়ে আমার। বর্তমানে ভারতের আসম প্রদেশের বিন্না গাঁও এর একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করেন। পাশাপাশি চালিয়ে যাচ্ছেন বিদ্যুৎ নিয়ে বিভিন্ন উদ্ভাবনী মূলক কার্যক্রম। মুকুল কুমার প্রায় চার বছর আগে বুঝতে পারেন তার দেহের অসম্ভব ক্ষমতার কথা সম্পর্কে। সে সময় দুর্ঘটনাক্রমে তিনি খেলতে গিয়ে বিদ্যুতের একটি তার স্পর্শ করে বসেন। তাতেও তার কোনো শরীরে সমস্যাই অনুভূত না হয়ায় তিনি একটু চিন্তিত হয়ে বিষয়টি বাসায় এসে পরিক্ষা করেন এবং বিদ্যুৎ নিরপেক্ষ একটি মানব দেহের আবিস্কার করেন। তিনি খালি হাতে বৈদ্যুতিক কোন ধরনের যন্ত্র ধরতে পারেন। কোন ধরনের বৈদ্যুতিক জন্ত্র ব্যাবহার না করেন মুকুল কুমার দীর্ঘ ২ বছর যাবত গ্রাম বাসিকে ফ্রী বৈদ্যুতিক কাজে সহযোগিতা করে আসছেন। তিনি আর দাবি করেন এতে তার দেহের কোনো ক্ষতি হয় না। বরং এতে তার শক্তি বেড়ে যায়। তিনি আর বনেল আমি তখন আশ্চর্য হয়ে যাই। বিদ্যুৎ দেহের ভেতর দিয়ে গেলেও তার কোনো সমস্যা হয় না। বহু মানুষের সামনেই বহুবার এ কাজটি করে দেখিয়েছেন মুকুল কুমার। এমনকি তার দেহে যখন বিদ্যুৎ চলাচল করে, তখন টেস্টার ধরলে সেটিতেও আলো জ্বলতে থাকে। এতে মুকুল কুমারের কোনো যন্ত্রণা হয় না বলেই দাবি তার। বিস্তারিত ভিডিও দেখুন। 

তবে যে জাই করে করুক, বিদ্যুৎ আবিষ্কারক এর এর বিদ্যুৎ স্পর্শ করেই মরন হয়েচে। ভিডিও তে যা দেখলাম। হুম এটা সত্যি তবে জেনে সুনে এই বিদ্যুৎ এর সাথে কোন ধরনের মাস্তানি না করাই উত্তম। এই দুনীয়াতে আরও এমন অবাক করা অনেক কিছু রয়েছে। আমরা পরবর্তী পোস্ট া এমন আর কিছু অবাক করা বিসয় নিয়ে আলোচনা করবো ইনশাআল্লাহ। ততক্ষণ ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন। bdboyz এর সাথেই থাকুন।

আপনার মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here