যদি কাউকে পিসি দিয়ে থাকেন একবার দেখুন কি ক্ষতি হতে পারে আপনার

0
17

সাধারনত আমরা আমাদের নিজস্ব কম্পিউটার নানা প্রয়োজনে অন্যদের দিয়ে থাকি। কোন বন্ধু চেয়ে নিল ল্যাপটপটিতে কোন কাজের জন্য অথবা আপনি পিসির কোন সমস্যায় পড়ে বন্ধুকে ডাকলেন সে এসে কিছুক্ষনের মধেই সমস্যাটি সল্ভ করে দিল অথবা আপনি কোন বড় রকমের সমস্যায় পরলেন যার কারনে আপনি পিসিটি সার্ভিস এর দোকানে নিয়ে গেলেন সেও ঠিক করে দিল আপনার পিসিটি কিন্তু আপনি জানেন কি?? আপনার বন্ধু বা সার্ভিস সেন্টারের লোক কিকি করতে পারে আপনার পিসিতে।

আপনি আপনার কম্পিউটারে সবকিছু ঠিক করিয়ে নিয়েছেন। সবকিছু ভালই চলছে। কিছুদিন পর দেখলেন যে আপনার বিভিন্ন একাউন্টের পাসওয়ার্ড হ্যাক হয়ে গিয়েছে অথবা আপনার একাউন্টে কেউ না কেউ লগ ইন করেছে। কিন্তু কিভাবে সব একাউন্টের পাসওয়ার্ড হ্যাক হয়ে গেল আপনি ভেবে পরে একাউন্টের পাসওয়ার্ড রিসেট করে নিলেন আবার কিছু দিন পর একই সমস্যা দেখা দিল। তখন আপনি নিশ্চই ভেবে বসলেন আপনার পিসিটি হ্যাক হয়েছে কিন্তু কেন বা কিভাবে হ্যাক হল আপনার পিসিটি আসল ঘটনাটা কি তা জেনে নেই।

আপনার পিসিটি পেয়ে কিছুক্ষনের মধ্যেই পিসিতে হ্যাকিং এপ ইন্সটল করে দিতে পারে যা আপনার পিসিকে মনিটর করতে পারে। যখন আপনি পিসিতে ফেসবুকে অথবা অন্য কোন একাউন্টে লগ ইন করবেন তখন আপনার একাউন্টের ইউজার নেম ও পাসওয়ার্ড এপটি সেভ করে রাখবে এবং সময় মত পাঠিয়ে দিবে আপনি টেরও পাবেন না। এই সকল এপ সিস্টেম এ হাইড হয়ে থাকে। যার কারনে বোঝা যায় না। একমাত্র যে এই এপটি ইন্সটল করেছে  সে বুঝতে পারে এবং কিভাবে এপটি পরিচালনা করতে হবে তাও সে জানে। এই এপ গুলো শুধু যে আপনার পাসওয়ার্ড হ্যাক করে তা না। আপনার ওয়েব ক্যাম আটোমেটিক চালু হয়ে আপনাকে রেকর্ড করে সেভ করে রাখতে পারে এমনকি আপনি কি করছেন আপনার পিসিতে কি দেখছেন কোন কোন ওয়েবসাইটে ভিসিট করলেন তাও সেভ করে রাখতে পারে। এছাড়াও আপনার ছবি তুলে কিংবা আপনার পিসির মুল্যবান ডাটা সমূহ কপি করে নিতে পারে।

এগুলো করার পর সে ব্যক্তি চাইলেই আপনাকে ব্ল্যাকমেইল করতে পারে। অতএব,আপনি নিশ্চই চাইবেন না এটি আপনার সাথে ঘটুক। তাই এখন থেকে কাউকে নিজের পিসি দেওয়ার আগে একবার ভাবুন।

পোস্টটি পড়ে ভাল লাগলে একটা লাইক দিয়েন।কোথাও না বুঝলে কমেন্ট বক্স আছে।আর কোন ভুল হলে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন।
ধন্যবাদ।

আপনার মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here