ফেসবুকে অন্যের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে

0
67

ফেসবুকে একজন মানুষ অন্য আরেকজন মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চায়। ফেসবুকে এই মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চাওয়া মানুষকে আরও সৃষ্টিশীল করেছে। সংগীত শিল্পী বলেন,আর অভিনেতা বা কবি-লেখক, সবার চেষ্টা এখন অন্যের কাছে নিজেকে এবং নিজের কাজকে পৌঁছে দেওয়া। ফেসবুকের ‌লাইক এর জন্য একজন আরেক জনের কাছে আসলে কি উপস্থাপন করতেছেন ?

ফেসবুকের ‌লাইক এটিও সেই দৃষ্টি আকর্ষণের উপায় মাত্র। লাইক পেতে চাওয়া খারাপ কিছু না। খারাপ হচ্ছে লাইক পাওয়ার নেশা। কিছুদিন ধরে সামাজিক মাধ্যমের ধারা বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, লাইক পাওয়ার এই আশায় থেকে কিছু মানুষ এমন অনেক কিছু করছেন, যা করাটা উচিৎ নয়। আমাদের  সামাজিক মূল্যবোধের সঙ্গে মেলে না। তাঁর নিজের জন্য এবং সমাজের জন্যও ভুল বার্তা প্রকাশ করে। আবার লাইকের মাপকাঠি দিয়ে এখন সবকিছু বিচার করার প্রবণতাও তৈরি হচ্ছে, এখন এক অভিনেতা যদি অন্য অভিনেতার থেকে বেশি লাইক পায় তাঁর কোনো ফেসবুক পোস্টে, তার মানেই এটা নয় যে লাইক বেশি পাওয়া অভিনেতাটিই ভালো। কারণ লাইকের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট মানুষটির পেশার যোগ সূত্র থাকলেও সেটি তত বড় নয়। বরং সামাজিক মাধ্যমে সেই ব্যক্তিটি কী পোস্ট দিচ্ছেন, সেটিই লাইক সংখ্যা কে প্রভাবিত করছে। লাইকের কারিগরি একটি দিকও আছে। ফেসবুক কীভাবে কোন তথ্য কার কাছে পৌঁছাবে, এর একটি প্রোগ্রাম করা আছে। ফেসবুকের এই এলগরিদম প্রতিনিয়ত পরিবর্তিত হয়। ফেসবুক এখন চায় ভিডিও ও ছবিকে বেশি গুরুত্ব দিতে। এমন আরও অনেক কারিগরি দিক রয়েছে, যা আমরা জানিও না। আবার ফেসবুকে লাইক কেন মানুষ দেয়।

ফেসবুকে ছবি পোস্ট করলে সাধারণত ৫৩%  বেশি লাইক পাওয়া যায়। ন্যূনতম ৮০ শব্দের মধ্যে পোস্ট দিলে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের সঙ্গে ৬৬% সম্পৃক্ততা বাড়ে। প্রতিদিন দু-একবার পোস্ট করলে (লাইক) এর সংখ্যা ধীরে ধীরে বাড়বে। তবে নিরপেক্ষ পোস্টে মানুষ লাইক কম দেয় এতাই সাভাবিক। নেতিবাচক পোস্ট কিংবা মানবিক কোনো ব্যাপারে মানুষের লাইক দেওয়ার প্রবণতা বেশি থাকে। এ ছাড়া সপ্তাহে ন্যূনতম এক থেকে চারবার পোস্ট করলে ৭১%  এর বেশি সাড়া পাবার সম্ভাবনা থাকে বন্ধু কিংবা ফলোয়ারদের কাছ থেকে।ফেসবুক ইদানীং ভিডিওকে খুব বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। তবে ফেসবুকের যেকোনো পোস্টের ক্ষেত্রে একটি সূত্র সব সময় মনে রাখবেন। কী পোস্ট করবেন, এটা একবার ভাবার আগে দশবার ভাববেন কী পোস্ট করবেন না। বিখ্যাত যে কেউ ফেসবুকে যা-ই পোস্ট করুক, তা ‘ভাইরাল’ হতে সময় লাগে না এতাই স্বাভাবিক। কিন্তু আপনার আমার ক্ষেত্রে এমন হবে না এটাই স্বাভাবিক। তাই আপনাকে আমাকে ফেসবুক ব্যাবহার করতে হবে একটু চালাকি করে। চলুন দেখে নেই কি সেই চালাকি ? 

  • লাইক প্রথমেই এই কথাটার গুরুত্ব বুঝে তারপরেই একটা লাইক দিন। প্রচলিত ধারণা মতে ফেসবুকে জনপ্রিয় হতে সব ধরনের পোস্টে লাইক দিয়ে যাওয়া। এতে নিজের অ্যাকাউন্টেও বেশি বেশি লাইক ফেরত পাওয়ার সম্ভাবনা থাকে এমন ধারনা করেন অনেকে। কিন্তু এটা একদম একটা ভুল ধারণা। বিতর্কিত কোনো পেজ অথবা কারও পোস্টে লাইক দিলে উল্টো আপনার অ্যাকাউন্টে লাইকের সংখ্যা কমবে। তখন মানুষ ভাববে আপনার ব্যক্তিত্ব কিংবা চিন্তা চেতনায় একটু সমস্যা আছে
  • ফেসবুক পোস্টের ক্ষেত্রে মনে রাখবেন। আপনার ভালো লাগে এমন কিছু আরেক জনের কাছে ভালো না লাগতে পারে। এ কারণে সবকিছুই ফেসবুকে পোস্ট করা উচিত না। বিরক্তি হবে এমন পোস্ট না করে ব্যতিক্রমী  কিছু শিক্ষামূলক পোস্ট করুন। মানুষ ব্যতিক্রমী শিক্ষামূলক যে কোনো কিছুই অনেক পছন্দ করে। সেটা হতে পারে হাসি-কান্না কিংবা যেকোনো কিছু সত্যি তথ্যমূলক শুধু ব্যতিক্রমী হতে হবে।
  • মানুষ খবর জানতে পড়তে ভালোবাসে, খবর দিতে ভালোবাসে। এখন তো যেকোনো খবর সংবাদ মাধ্যমের চেয়ে ফেসবুকেই সবার আগে পাওয়া যায়। এ রকম বিশ্বস্ত সূত্রের নানা ধরনের খবর শেয়ার দিন। পাশাপাশি বিভিন্ন খবর নিয়ে নিজেই নিজের ব্যক্তিগত মতামতও লিখুতে পারেন। এতে মানুষ আপনাকে আলাদা ভাবে চিনবে, গুরুত্ব দেবে। লিখতে পারেন সাম্প্রতিক ঘটে যাওয়া আলোচিত যে কোনো বিষয়ে। সেটা হতে পারে খেলা, রাজনীতি, সংস্কৃতি কিংবা বিনোদন শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে। তবে সামাজিক যেকোনো সমস্যা নিয়ে লেখা মানুষ পছন্দ করে। পড়তে আগ্রহ প্রকাশ করে।
  • বিশেষ দিন কে বিশেষভাবে উপস্থাপন করুন।মনে করুন আজকে আপনার বন্ধুর জন্মদিন।তাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা তো জানাবেনই, পারলে তাঁকে নিয়ে ব্যতিক্রমী কিছু করার চেষ্টা করুন। আপনার বন্ধুর জন্মদিনে কোন বিখ্যাত মানুষ জন্মেছে, তাদের খুঁজে বের করে মজা করে কিছু লিখার চেষ্টা করুন। মনে রাখবেন, ফেসবুক সৃজনশীল চিন্তা ভাবনার মানুষ এর একটু আলাদা কদর করে।
  • ফেসবুকে বেশি লাইক পেতে পোস্ট (টাইমিং) বেশ গুরুত্ব রয়েছে। কোনো ঘটনার রেশ কাটার আগে তা নিয়ে পোস্ট করার চেষ্টা করুন। যে কোনো আলোচিত ঘটনা ঘটলে ফেসবুক ব্যাবহার কারীদের মানুষের উপস্থিতি বাড়ে। আবার ছুটির আগের রাতে, ছুটির দিন সন্ধ্যার পর মানুষ সামাজিক মাধ্যম ফেসবুক বেশী আসে। ছুটিতে কে কী করলেন তা জানাতে বা জানার আগ্রহ নিয়েই এ সময় সামাজিক মাধ্যম ফেসবুক মানুষের উপস্থিতি বাড়ে। এমন সময় আপনি কিছু তথ্য নিয়ে আলোচনা করলেন। ভাল সাড়া পেতে পারেন।
  • প্রোফাইল ছবিতে নতুনত্ব আনুন, মাঝেমধ্যে প্রোফাইল ছবি পরিবর্তন করুন। মাঝে মধ্যে কোন একটি বিষয়ে সমালোচনার করুন। তবে সমালোচনা যেন অযৌক্তিক না হয়ে যায়। যদিও আজকাল রাজনীতি আর খেলা নিয়ে কিছু লিখলে ফেসবুকে মানুষের সাড়া বেশী পাওয়া যায়। কিন্তু এর জন্য কিছু বিপদও আছে। পড়তে হবে আইনি ঝামেলাতেও।
  • নিজের আবেগ-অনুভূতি দিয়ে পোস্ট করুন, তবে সেটা সংখ্যায় কম হওয়াই ভালো। অশ্লীল এবং অসাম্প্রদায়িক পোস্ট দিয়ে বেশি লাইক পাওয়াতো দূরের কথা, উল্টো বিপদে পড়ার শঙ্কাই বেশি থাকে। লেখা লেখির হাত ভালো হলে নানা বিষয় নিয়ে লিখতে পারেন, যা মানুষকে ভাবতে এবং পড়তে বাধ্য করবে। যদি আপনার মানুষের বিপদে পাশে দাঁড়ানোর অভ্যাস থাকলে এ ক্ষেত্রে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হতে পারে অনেক বড় একটা উপযুক্ত স্থান ।

ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রধান মাধ্যম হতে পারে ফেসবুকে সেই ব্যবসার প্রচারের জন্য আপনার ফেসবুকে একটি পেজ দরকার। প্রোফাইল ও কাভার ছবি ভালো মানের দেয়া এবং সেটা অবশ্যই হতে হবে ব্যবসা ভিত্তিক ছবি জার মাধ্যমে আপনার ব্যবসার পরিচয় পায়। আপনার পণ্যের নানা গুণাবলি নিয়ে নিয়মিত আলোচনা করে পোস্ট করুন। আপনার পণ্য যত ভালোই হোক না কেন, তা প্রচারে নিয়মিত পোস্ট না করলে বেশি লাইক আসবে না। মনে রাখবেন, মানুষ এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি সচেতন। তাই ব্যবসায়িক পেজে সব তথ্য সঠিক দেয়ার চেষ্টা করবেন না হলে দিন দিন আপনার পেজের (ফলোয়ার) সংখ্যা কমে যাবে  আর এটাই স্বাভাবিক। আর ফলোয়ার সংখ্যা কমা মানে তো লাইকও কমে যাওয়া। বর্তমানে ফেসবুক হল বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। সক্রিয় ফেসবুক ব্যবহার কারীর সংখ্যা দিক থেকে বাংলাদেশর ঢাকা বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর হিসাবে পরিচিত। বাংলাদেশে যে সকল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার হয়, তার মধ্যে ৯৫% ফেসবুক ব্যবহারকারী। ফেসবুক আপনার দৃষ্টি আকর্ষণের উত্তম মাধ্যম হতে পারে। তবে ফেসবুককে ব্যবহার করতে হবে ধৈর্য, বুদ্ধি আর সৃজনশীলতার মিশ্রণে। পরবর্তী পোস্টে কীভাবে ফেসবুক পোস্টে লাইক পাওয়া যাবে বিস্তারিত আলোচনা করবো। ততক্ষণ ভাল থাকুন, সুস্থ থাকুন। bdboyz.com এর সাথেই থাকুন।

আপনার মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here